‘সতর্ক হতে হবে, সবার আগে জীবন’

0
40

করোনাভীতির মধ্যেই আয়োজন করা হচ্ছে ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট  লীগ। আগামীকাল শিরোপাধারী আবাহনী লিমিটেড ও নবাগত পারটেক্স ক্রিকেট ক্লাবের ম্যাচ দিয়ে পর্দা উঠছে ঢাকা লীগের। আর এই মুহূর্তে ব্যাটে-বলের লড়াই ছাপিয়ে আলোচনাটা করোনা নিয়ে।
করোনাভাইরাস আতঙ্কে ধীরে ধীরে স্থবির পড়ছে আন্তর্জাতিক ক্রীড়াঙ্গন। স্থগিত হয়ে গেছে একের পর এক সিরিজ, লীগ, টুর্নামেন্ট। কোথাও কোথাও দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে আয়োজন করা হচ্ছে ম্যাচ। ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেট লীগে অবশ্য দর্শকদের নিয়ে ভাবনার কিছু নেই। ঢাকা লীগে এখন দর্শক দেখা যায় না খুব একটা। করোনা আতঙ্কের মধ্যেই তাই শুরু হচ্ছে ঢাকা প্রিমিয়ার লীগ।
আসর সামনে রেখে এরই মধ্যে প্রস্তুতি শুরু করেছে সব দল।

ব্যাটে-বলের লড়াই ছাপিয়ে ক্রিকেটারদের মধ্যে ঘুরে-ফিরে আসছে করোনা প্রসঙ্গ। খেলতে গেলে খেলোয়াড়দের হাত মেলাতে হবে, কোলাকুলি হতে পারে। বলে থুতু লাগাতে হবে। ড্রেসিংরুমে পাশাপাশি বসতে হবে। প্রতিটি কর্মকাণ্ডে ঝুঁকি থাকছে করোনো ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার। আবাহনীতে নাম লেখানো মুশফিকুর রহীম বলছেন, ঝুঁকি থাকলেও জীবিকার টানে ক্রিকেটকে এড়িয়ে চলার উপায় নেই। এই মুহূর্তে শুধু সতর্কতা অবলম্বনই করতে পারেন তারা। দেশসেরা উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহীম বলেন, ‘অন্য অনেক দেশে খুব তাড়াতাড়ি ছড়িয়েছে, আমাদের দেশেও কয়েকজন শনাক্ত হয়েছে, আমার কাছে মনে হয় যতটা সতর্কতা অবলম্বন করা যায়। আমরা খেলোয়াড়, যদি না খেলি তাহলে পেট চলবে কীভাবে? সবাই যদি নিজ নিজ কর্তব্য পালন করে, সেটা শুধু নিজের নয়, অন্যরা উপকৃত হবে। অবশ্যই সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত। আপনারা দেখেছেন কোথাও কোথাও খেলা চলছে, গ্যালারি খালি করে হলেও। আমরা যদি সবাই একসঙ্গে কাজ করতে পারি তাহলে ধীরে ধীরে অবস্থার উন্নতি হবে। সবার আগে জীবন।’
জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের পর মাহমুদুল্লাহকেও জিজ্ঞেস করা হয়েছিল করোনা নিয়ে কতটা চিন্তিত তারা। বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক বলেছিলেন, করোনা আতঙ্ক থাকলেও খেলা নিয়েই তাঁরা বেশি ভাবছেন, ‘আপাতত ডিপিএল (ঢাকা প্রিমিয়ার লীগ) নিয়ে ভাবছি। এটা তো আমাদের নিয়ন্ত্রণে নেই। আমাদের মধ্যে ডিপিএল নিয়েই বেশি কথা হচ্ছে।’ পেসার আল আমিন হোসেন বলেন, ‘টিভি-ফেসবুক দেখেই যা জানছি, শুনছি, এসব দেখেই সচেতন হওয়ার চেষ্টা করছি। প্রিমিয়ার লীগ শুরু হওয়ার পর হয়তো নিজেদের মধ্যে সচেতনতা আরও বাড়বে। বুঝতে পারবো কী করতে হবে আমাদের।’

সূত্র : মানবজমিন