শামির কাছ থেকে বোলিং টিপস নিলেন রাহী

0
22

ভারতের বিপক্ষে প্রথম টেস্টে ৪ উইকেট শিকার করেছেন বাংলাদেশ পেসার আবু জায়েদ রাহী। দ্বিতীয় দিন সকালে চেতেশ্বর পূজারা ও বিরাট কোহলিকে ফিরিয়ে স্বাগতিকদের চাপে ফেলে দেন তিনি। প্রথম দিন শেষে রোহিত শর্মার উইকেটটিও পান ডানহাতি পেসার।

আবু জায়েদের আউট সুইংয়েই ব্যক্তিগত ৩২ রানে স্লিপে ক্যাচ তুলে দেন মায়াঙ্ক আগারওয়াল। তবে তা লুফে নিতে পারেননি ইমরুল কায়েস। বাংলাদেশের সম্ভাব্য নায়ক হয়ে ওঠা এ পেসারের কাছে কোহলির উইকেটটি ছিল স্বপ্নপূরণ। কীভাবে আরও উন্নতি করা যায়, ম্যাচশেষে তা জানতে যান ভারতীয় পেসার মোহাম্মদ শামির কাছে।

ডানহাতি গতি তারকার অসাধারণ বোলিংয়েই কার্যত ইন্দোর টেস্ট জিতেছে টিম ইন্ডিয়া। তিনিই রাহীর অনুপ্রেরণা। ভবিষ্যতে শামির মতো সিম পজিশন রেখে বল করাই লক্ষ্য তার।

রোববার বাংলাদেশের অনুশীলনের শুরুতে আবু জায়েদ বলেন, শামি ভাইয়ের মতো বল করতে পারলে খুব ভালো লাগবে। ম্যাচশেষে তার কাছে পরামর্শ চাইতে গিয়েছিলাম। উনার উচ্চতা আমারই মতো। এবার সিম পজিশনও যদি উন্নত করতে পারি, তা হলে একদিন হয়তো ওর মতোই বোলার হয়ে উঠতে পারব।

তিনি বলেন, প্রথম দিন শামি ভাই যখন বল করছিল, তা মন দিয়ে লক্ষ্য করেছি। তার থেকে অনেক কিছু শেখার আছে।

কোহলি, পূজারার উইকেট পেয়েছেন। কেমন ছিল সেই অনুভূতি? রাহীর উত্তর- কোহলির উইকেট পাওয়া আমার কাছে স্বপ্নের মতো। তাকে আউট করতে পেরে খুব ভালো লাগছে। সত্যি স্বপ্নপূরণ হয়েছে।

গোলাপি বলে এখনও খেলার অভিজ্ঞতা হয়নি আবু জায়েদের। ইংল্যান্ড থেকে তার মেজভাই একটি গোলাপি বল উপহার হিসেবে নিয়ে এসেছিলেন। কিন্তু তাতে বল করে দেখা হয়নি। এদিন অনুশীলনে এলেও বল করেননি টাইগার পেসার।

রাহী মনে করেন, গোলাপি বল বেশি সুইং করতে পারে। এ ছাড়া ভারত-বাংলাদেশ দুই দলই গোলাপি বলের বিপক্ষে প্রথম খেলবে। তাই কোন দল এগিয়ে আছে বলা যাবে না। যারা ভালো খেলবে তারাই জিতবে।